সোনারগাঁয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গোলাগুলি, যুবক নিহত

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের একটি ওয়ার্ডে উপ- নির্বাচনে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে হৃদয় ভূইয়া (২৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় তার সহযোগি ফারুক নামে আরেক যুবক গুরুতর আহত হয়েছে।

শনিবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ইউনিয়নের দুধঘাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত হৃদয় পিরোজপুর ইউনিয়নের দুধঘাটা গ্রামের আমিন হোসেন ভুইয়ার ছেলে। আহত ফারুক একই এলাকার মৃত কামাল হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় এক বছর আগে পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য মুজিবুর রহমান মারা যান। এ করণে আজ সকাল থেকে ওই সদস্য পদে দুধঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে মোরগ প্রতীকে আব্দুল আজিজ সরকার ও তালা প্রতীকে কায়সার আহম্মেদ রাজু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে মোরগ মার্কার প্রার্থী আজিজ সরকার ৯২৯ ভোট ও তালা প্রতীকে কায়সার আহম্মেদ রাজু ৮১১ ভোট পেয়েছেন। এসময় পরাজিত প্রার্থী কায়সার আহম্মেদ রাজু ও তার সমর্থকেরা ফলাফল না মেনে ফলাফল পুনরায় গণনা করতে বলে। এক পর্যায়ে তারা উত্তেজিত হয়ে পড়েন। এতে দু-পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ও সংর্ঘষ শুরু হয়। এতে পুলিশ বাধা দিলে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায় দুই পক্ষের লোকজন। এ সময় পুলিশের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কর্তব্যরত পুলিশ গুলি ছোড়েন। এতে তালা প্রতীকের দুই সমর্থক হৃদয় ও ফারুক গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে হৃদয় পথিমধ্যে মারা যান আর ফারুককে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

পরাজিত প্রার্থী কায়সার আহম্মেদ রাজু জানান, নির্বাচনের ফলাফলের আগে আমার সাক্ষর নেয়া হয়। পরে মোরগ মার্কার প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা করা হয়। এতে আমার সমর্থকরা তা মেনে নিতে পারেনি এবং তারা উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এতে দুপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ছুঁড়ে। এতে গুলিতে হৃদয় নামে আমার একজন সমর্থক নিহত হয় এবং ফারুক নামের আরেকজন আহত হয়।

এ বিষয়ে মোরগ মার্কার প্রার্থী আজিজ সরকার জানান, ভোট গণনা শেষে আমাকে জয়ী ঘোষণা করা হলে আমি বাড়ি চলে আসি। পরে পুলিশের সাথে তারা কিভাবে সংঘর্ষে জড়িয়েছে তা জানা নেই।

সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পঙ্কজ সরকার জানান, নির্বাচনের ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণার সময় দু-পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ রাবার বুলেট ছুঁড়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম কামরুজ্জামান বলেন, পিরোজপুরে ফলাফল ঘোষণার পরে বিজয়ী প্রার্থী ও পরাজিত প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে হৃদয় নামে এক যুবক নিহত হয়।