সোনারগাঁয়ে যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম ভূইয়াকে (৪০) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।  বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় জামপুর ইউনিয়নের মাঝের চর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নজরুল ইসলাম উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সম্পাদক পদে রয়েছেন। তিনি নোয়াগাঁও ইউনিয়নের চর নোয়াগাঁও গ্রামের মৃত শফেদ আলী ভূইয়ার ছেলে। আর ওই ইউনিয়নের ধন্ধি বাজারে রড ও স্টিলের ব্যবসা করতেন তিনি।

নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী আসমা আক্তার বলেন, আমার স্বামী রূপগঞ্জের ভুলতা গাউছিয়া এলাকায় ব্যবসায়ের কাজে যাচ্ছিলেন। পথে মাঝের চর বাস স্ট্যান্ড থেকে একটি অটোরিকশায় ওঠেন। তবে দীর্ঘ সময় ধরে কোন যাত্রী না ওয়ার কারণে তিনি অটোরিকশা থেকে নেমে বিকল্প পথে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় অটোরিকশা থেকে নেমে যাওয়ার সময় অটোরিকশার লাইম্যান জাকির হোসেন ও অটোচালক দাইয়ান মিয়ার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এর এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। এ সময় লাইনম্যান দাইয়ানের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে তাকে পেটানো হয়। আর চালক জাকির হোসেন তাকে এলোপাথারী কিল ঘুষি মারে। এ সময় জাকির ও দাইয়ানের সঙ্গে স্ট্যান্ডের অন্যান্য অটোচালকরা যুক্ত হয়ে তাকে মারধর করেন। এতে ঘটনাস্থলে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়লে নজরুল ইসলামকে উদ্ধার করে আড়াইহাজার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মুজিবুর রহমান বলেন, অটোস্ট্যান্ডে কোন একটা বিষয় নিয়ে মারামারির ঘটনা ঘটনা ঘটেছে। এতে তিনি আহত হলে, তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয়। মূলত যেখানে তিনি আহত হয়েছেন সেই স্থানটি সোনারগা ও আড়াইহাজারের বর্ডার এলাকা। ফলে তাকে নিকটস্থ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে। নিহতের পরিবার স্বজনদের দাবি, তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তবে কী কারণে তাকে মারধর করা হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। তদন্তে বেরিয়ে আসবে। 

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান উল্লাহ বলেন, খবর পেয়ে আমরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে লাশ উদ্ধার করেছি। নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *