সন্ত্রাসীদের ঠেকাতে পাঁচ মিনিটও লাগবে না : শামীম ওসমান 

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, গতকাল আমার এলাকায় ধ্বংসাত্মক কাজ চালানো হল, ফতুল্লায় ১৩-১৪ পয়েন্টে মশাল মিছিল করল। এগুলো যারা করেছে তারা সবাই সন্ত্রাসী। ওদের ঠেকাতে পাঁচ মিনিটও লাগবে না, যদি জনগণ নির্দেশ দেয়। কিন্তু এগুলো কাদের ইন্ধনে করছে, এটা আমি প্রশ্ন রাখতে চাই। 

বুধবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের ৬ নং ওয়ার্ডে নির্বাচনী সভায় অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন। 
রাজধানীতে ট্রেনে ঘটে যাওয়া নাশকতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, 

তিনি আরও বলেন, আমি মানসিকভাবে সুস্থ নেই। ট্রেনে একটা বাচ্চার ব্যাগ পড়ে আছে। সে তার বাবা মাকে জড়িয়ে ধরে মারা গেল। এরা রাজনৈতিক দল! এগুলো দেখে আমি সুস্থ হতে পারিনি এখনও। আমারও একটা নাতি আছে। আমি মানুষকে বলতে চাই, জেগে উঠুন এই নরপশুদের বিরুদ্ধে। বিএনপি দলটির নাশকতা কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপিকে আমি রাজনৈতিক দল ভাবতাম না। ২০১৪ সালে তারা স্কুল পুড়িয়েছে, মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। সেসময় তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হলে আজ এ দিন দেখতে হত না। যারা মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছে তারা এখনও বাংলাদেশে রাজনীতি করে। আমি মনে করি স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদরা আজ লজ্জিত, আমিও লজ্জিত।

শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জে আমি নির্বাচিত হয়ে প্রতি ওয়ার্ড থেকে সকল শ্রেণী পেশার এক হাজার লোক নিয়ে কাজ শুরু করবো। শুধু আওয়ামী লীগ না, সকল শ্রেনী পেশা ও দল মতের লোক নিয়ে কাজ করবো। আমার এখন মূল টার্গেট মাদক সন্ত্রাস নির্মূল করা। যারা আমার মত নয়শ টাকার জন্য ফরম ফিলাপ করতে পারে না, সেসকল ছাত্রদের পাশে দাঁড়ানোই হবে আমার লক্ষ্য। 

ভোটারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনি যদি মনে করেন ভবিষ্যত প্রজন্মকে ফল খাওয়াবেন তাহলে ফল গাছ লাগানো উচিত। আমাকে সার দিবেন পরিচর্যা করবেন। আর আমি যদি কাটা গাছ হই, তাহলে সেটাকে কেটে ফেলে দেয়া উচিত। আমি মানুষকে বলতে চাই জাগো।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়মাী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইয়াসিন মিয়া, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি সহ প্রমুখ।