মাইকে ‘ডাকাত’ ঘোষণা দিয়ে গণপিটুনি, নিহত ৪

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মাইকে ‘ডাকাত’ ঘোষণা দিয়ে গণপিটুনিতে চার জন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন। রবিবার (১৭ মার্চ) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের বাঘরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) চাইলাউ মারমা ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন।

নিহত ৪ জনের মধ্যে একজনের নাম জাকির হোসেন। বাকিদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রাতে কাঁচপুর ইউনিয়নের বাঘরী গ্রামের বিলের দিকে আনুমানিক আট থেকে দশ জনের এক দল লোক সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করছিল। এসময় স্থানীয় কয়েকজন তাদের দেখতে পেয়ে ছুটে গিয়ে গ্রামবাসীকে খবর দেয়। পরে মসজিদের মাইকে ডাকাত বলে ঘোষণা দিলে গ্রামবাসী তাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। এসময় তারা পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তাদের গণপিটুনি দেয়। এতে ঘটনাস্থলে দুই জন মারা যায়। আরও তিন জন অচেতন অবস্থায় পড়েছিল। তাদের অন্য সদস্যরা বিলে ঝাঁপ দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠায়। পরে আরও দুই জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়। এ গ্রামে একাধিকবার ডাকাতির ঘটনায় গ্রামবাসী ক্ষুব্ধ রয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেন।

জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) চাইলাউ মারমা বলেন, চার জনের মধ্যে তিনজন ঘটনাস্থলে মারা গেছেন। আর একজন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। তার নাম জাকির হোসেন। এছাড়া আরও একজন আহত হয়ে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার নাম মোহাম্মদ আলী। এই ঘটনায় তদন্ত চলছে। তদন্তের পরে বিস্তারিত বলা সম্ভব হবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি সার্কেল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, এলাকাবাসীর গণপিটুনিতে চার জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরও একজন আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।