বৈশ্বিক মন্দা যুদ্ধের কারণে দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়েছে, এতে সরকারের দোষ নেই : লিপি ওসমান

বাংলার নারায়ণগঞ্জ ডটকম : 

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের সহধর্মিনী ও জাতীয় মহিলা সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সালমা ওসমান লিপি বলেছেন, বর্তমানে আওয়ামীলীগ সরকার না হয়ে অন্য যে কোন সরকার থাকতো, তাহলে তার থেকে দাম বেশী বাড়তো। কারণ বৈশ্বিক এই মন্দা পরিস্থিতিতে বিশ্বের ৪২টি দেশে জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে। আমার বড় বোন কানাডা থাকে। কয়েকদিন আগে তার সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে বলছিলাম আমাদের দেশে এখন ডিমের দাম ১৫ টাকা। তখন আমার বড় বোন জানালেন কানাডায় একটি ডিমের দাম বাংলাদেশী টাকায় ৪৫ টাকা। বৈশ্বিক মন্দা যুদ্ধের কারণে বিশ্বের অনেক উন্নত দেশেই দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়েছে। এতে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন সরকারের কোন দোষ নাই।

রোববার (২২ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষ্যে পূজামন্ডপে জিআর চালের ডিও এবং দু:স্থ পরিবারের মধ্যে ঢেউটিন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

লিপি ওসমান বলেন, জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে এ কথা সত্য। তবে এই জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি নিয়েও আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন সরকারকে দায়ী করে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এটা নিয়ে আমাদেরকে খতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, সদরের ৭৬টি পূজামন্ডপে সরকার চাল ও দু:স্থ পরিবারের মধ্যে ঢেউটিন বিতরণ করা হচ্ছে। এগুলো দিয়েছে সরকার। এমপি সাহেবের মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে এসব বিতরণ করা হচ্ছে। সরকার প্রতিটি মূহুর্তে প্রতিনিয়ত আমাদের মনে রেখেছে। আমরাও যেন সরকারকে ভুলে না যাই। সামনে জাতীয় নির্বাচন। আপনাদের সতর্ক থাকতে হবে। সচেতন হতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানকে ভুলে গেলে চলবেনা। আজকে দেশজুড়ে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এজন্য আগামী দিনেও উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে বজায় রাখতে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্ত করে ধরতে হবে। কেউ যাতে তার সঙ্গে প্রতারণা না করে। কারণ তিনি বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের পথে নিয়ে যাচ্ছেন। সমস্ত মিথ্যাচার, কুসংস্কার, অপপ্রচার, যারা ক্ষমতায় যাওয়ার লোভে মানুষ পুড়িয়ে মারতে দ্বিধাবোধ করেনা তাদের বিরুদ্ধে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।  

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রিফাত ফেরদৌস’র সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস। সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সরকারি তোলারাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক শিরিন বেগম, সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. সালাম সহ প্রমুখ।