বিএনপি ব্যাগে করে ঢিল ও ককটেল নিয়ে এসেছিল, বৃষ্টির মত ঢিল ছুঁড়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিএনপির নেতাকর্মীদের তাণ্ডবের কথা উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বৃষ্টির মত ঢিল ছুঁড়েছে বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারা ব্যাগে করে ঢিল ও ককটেল নিয়ে এসেছিল। এতে অন্তত ১শ পুলিশ আহত হয়েছে। ওদের (বিএনপি) ছোঁড়া ঢিলে আহত এক পুলিশ সদস্যকে ওদের এক ছাত্রদল নেতা পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে। আমাদের আরেকজন পুলিশ সদস্য মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

রবিবার (২৯ অক্টোবর) বিকেলের নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার দুপ্তারা এলাকায় আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তেব্যে তিনি একথা বলেন। 

বিএনপির কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে তিনি বলেন, গতকাল (শনিবার) বিএনপি শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছিল। সারাদেশ থেকে বিএনপি নেতাকর্মীদের তারা নিয়ে আসল। আমরা বলেছিলাম মাঠে যান, যায়নি। ভেবেছিলাম ওরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি করবে। কিন্তু কি দেখলাম। ওরা আমাদের একটি গাড়ি পুড়িয়ে দিল। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি করলো। পরে প্রধান বিচারপতির বাসভবনেও ওরা হামলা করেছে।ইসরায়েলে দেখেছি হাসপাতালে আক্রমণ করতে। একইভাবে ওরা হাসপাতালে আক্রমণ করেছে। মারপিট ও ভাংচুর করে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে। 

ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ধরনের ষড়যন্ত্র করে বিদেশি বন্ধুদের নিয়ে ওরা ঘটনা ঘটাতে চাচ্ছে। ওরা নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চায়। আমেরিকার এক ব্যাক্তি সে নাকি আমেরিকার রাষ্ট্রপতির বন্ধু। তাকে নিয়ে এসেছে। এই যে নৈরাজ্য এগুলো ওরা সবসময় করে আসছে। 

প্রধানমন্ত্রীর বিকল্প নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আপনাদের ভয় নেই। আপনাদের নজরুল ইসলাম বাবুর মত নেতা আছে। তিনি আমাদের অহংকার। আমি অনেক তথ্য নিয়ে এসেছিলাম। সারা বাংলাদেশের আজ একই অবস্থা। আমি নেত্রকোণায় গিয়েও দেখেছি জনতার ঢল। ছাতা মাথায় নিয়ে তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের খবর শুনতে এসেছেন। শেখ হাসিনার বিকল্প শুধুই শেখ হাসিনা।

নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল, সাবেক সংসদ সদস্য ও সোনারগাঁ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কায়সার হাসনাত, জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল সহ প্রমুখ।