বিআইডব্লিউটিসি’র জমি দখলের অপচেষ্টা ও হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

নারায়ণগঞ্জে বিআইডব্লিউটিসি’র জমিতে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে দখলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছেন বিআইডব্লিউটিসি কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দরা। কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট বেঙ্গল এর লোকজনের বিরুদ্ধে এই হামলার অভিযোগ উঠেছে। 

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে বিআইডব্লিউটিসি এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা এই দাবি করেন।  

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য পাঠ করে বিআইডব্লিউটিসি’র কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সদস্য সচিব মানসুরা আহমেদ বলেন, রাস্ট্রপতির অধ্যাদেশ-২৮ এর ১৯৭২ বলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া বিআইডব্লিউটিসির নিজস্ব সম্পত্তি ৩ ও ৪ ঈশা খাঁ রোডের বিআইডব্লিউটিসির জমিতে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে অনুপ্রবেশ ও হামলা চালিয়ে দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট বেঙ্গল সংস্থাটি। অথচ সেখানে শ্রমিক- কর্মচারীরা দীর্ঘদিন যাবত কোয়াটারে বসবাস করে আসছিল। পরে সংস্কার কাজের সময় আমাদের অন্যত্র স্থানান্তর করা হয়। এবং সেখানে নতুন স্থাপনা তৈরির কাজ শুরু করতে গেলে কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট বেঙ্গল এর পক্ষ নিয়ে কিছু সংখ্যক সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের কাজ বন্ধ করে দেয়্। অথচ ১৯৭২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত আমরা ওই জমির মালিক এবং ভোগ দখল করে আসছি। এমনকি ওই প্রতিষ্ঠানের খাজনা, পৌরকর, গ্যাস বিল সহ যাবতীয় বিল বিআইডব্লিউটিসি পরিশোধ করে আসছে। সেখানে কুমুদিনী কিভাবে মালিকানা দাবি করে তা আমাদের বোধগম্য নয়?

তিনি আরও বলেন, কুমুদিনী এই জমির মালিকানা দাবি করে নারায়ণগঞ্জের প্রথম যুগ্ম জেলা জজ আদালতে মামলা করেছে। আদালতে এই মামলা বিচারাধীন রয়েছে। তবে আদালত উন্নয়নমূলক কোন কার্যক্রম গ্রহণের উপর নিষেধাঞ্জা দেয়নি; বিধায় বিআইডব্লিউটিসির চলমান উন্নয়ন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বাউন্ডারি দেওয়ার নির্মাণ করছে। এই অবস্থায় গত ২৩ এপ্রিল কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট বেঙ্গল এর পক্ষ নিয়ে ৭০-৮০ জন সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা চালিয়ে ওই জমিতে থাকা গাজ কেটে ফেলে। একইভাবে ২৫ এপ্রিল সন্ত্রাসী বাহিনী পাঠিয়ে হামলা চালায় ও নিরাপত্তা প্রহরীকে মারধর করেছে, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে। 

মামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগামী ১৯ মে এই মামলার শুনানী হবে। সেক্ষেত্রে আদালতকে সম্মান করেছি। এবং আদালতে যে রায় দিবে আমরা তা মেনে নিবো। অথচ কুমুদিনী আদালতকে অমান্য করে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়েছে। আমরা এই সন্ত্রাসী হামলা বন্ধের দাবি জানাচ্ছি।সংবাদ সম্মেলন শেষে প্রেস ক্লাবের নীচে সড়কে 

বিআইডব্লিউটিসি’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা মানববন্ধন করেন।এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিসি’র কর্মকর্তা ও কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক এ কে এম শাহজাহান, যুগ্ম আহবায়ক মো. মহসিন ভূইয়া, সদস্য জেসমিন আরা সহ অনেকে।