ফোন করে শামীম ওসমানকে বলে, ‘তোর মৃত্যু সামনে চলে আসছে’

অপরিচিত ফোন নম্বর থেকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। তিনি বলেন, গতকাল রাতে একটা অপরিচিত নম্বর থেকে আমাকে ফোন করে বলে, ‘তোর মৃত্যু সামনে চলে আসছে।’ কাদেরকে মৃত্যুর ভয় দেখান ? মৃত্যুর ভয় আমাদেরকে দেখাইয়েন না। ১৬ জুন নারায়ণগঞ্জে ২০ জন মানুষ বোমা বিস্ফোরণে মারা গেছে। আমি সেদিন বেঁচে গেছি। আমি মনে করি, আমি সেদিন মারা গেছি। মৃত্যুর ভয় তাদেরকে দেখাবেন যারা অসৎ পথে চলে। 

যারা আমাদেরকে হুমকি-ধামকি দেয়, তাদের বলতে চাই আমরা কারও করুনা ভিক্ষায় স্বাধীনতা পাইনি। এটা পেতে অনেক ত্যাগ করতে হয়েছে। আমাদের পূর্ব পুরুষরা লড়াই করে এ দেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। অথচ তাদের পরবর্তী জেনারেশন অর্থাৎ আমরা যারা আছি আমাদেরকে আপনারা মৃত্যুর ভয় দেখান। আমরা যারা পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পরে রাজনীতি করতে আসছি, আমরা তৈরি হয়েছি মৃত্যুকে মারার জন্য। সেই মৃত্যুর ভয় আমাদের দেখাবেন না।

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পঞ্চবটী এলাকায় থানা আওয়ামী লীগের শান্তি মিছিলে অংশগ্রহণ করে তিনি এ কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেছেন, ওরা আমাদের মানচিত্রে থাবা দিয়েছে। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হিমালয়ের চেয়ে শক্ত একজন নারী। তিনি আল্লাহ ছাড়া কারও সামনে মাথা নত করেন নাই, করবেন না। সামনে আরও অনেক কিছু হবে। তবে যত প্রতিকুলতা আসুন না কেন আমরা তা অতিক্রম করতে পারবো। 

জনগণ হরতার প্রত্যাখান করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত ওরা নারায়ণগঞ্জে আমাদের ১৭ জন মানুষকে হত্যা করেছিল। আমরা কিন্তু কাউকে হত্যা করি নাই। কাউকে আঘাতও করি নাই। আর কাউকে আঘাত করবোও না। আজকে মানুষ হরতাল মানছে না, মানুষ হরতাল মানবে না। আমরা মাঠে নেমেছি এবং নির্বাচন পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকবো। জয় আমাদের সু-নিশ্চিত। ৭তারিখে নির্বাচন হবে এবং সেই নির্বাচনে জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা আবারো প্রধানমন্ত্রী হবেন।’

মিছিলটি পঞ্চবটী থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়ক দিয়ে পাগলা পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়। সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের নেতৃত্বে হাজার হাজার নেতা-কর্মী ও সমর্থক শান্তি মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। 

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি চন্দন শীল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম সহ প্রমুখ।