ফতুল্লায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভে, পুলিশের গুলি ও সংঘর্ষ

বকেয়া বেতনের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন রপ্তানিমুখি  অবন্তী কালার টেক্সটাইল লিমিটেড কারখানার শ্রমিকরা।  এতে প্রায় তিন কিলোমিটার সড়ক জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়েন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট ছুড়েছে।  রবিবার (২১ এপ্রিল) সকাল থেকে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করলে এ ঘটনা ঘটে। 

 আন্দোলনকারী বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা বলেন, গত ৮ এপ্রিল দুপুর পর্যন্ত কাজ করার পর কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা দেওয়া হয়৷ তবে মার্চ মাসের বেতন পরিষোধ করা হয়নি। কিন্তু ঈদের বোনাস দেওয়া হয়েছে। তবে বেতন বকেয়ার ফলে দৈন্যদশার মধ্যে দিনাতিপাত করছেন শ্রমিকরা।কারখানার শ্রমিক আলামিন মিয়া বলেন, 

কারখানা বন্ধের সময় মোবাইলে বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিয়েও কথা রাখেনি মালিকপক্ষ৷ গত কয়েক মাস ধরে এভাবে বেতন নিয়ে এভাবে গড়িমসি করছে মালিকপক্ষ৷ একারণে আজ শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছে।তবে কারখানার মালিক পক্ষের একজন প্রতিনিধি নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, 

ঈদের আগে সব শ্রমিককে বোনাস দিয়েছি। কিন্তু শিপমেন্ট ঠিকমতো না হওয়ায় মার্চের বেতনটা দিতে পারিনি৷ আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সকলের বেতন পরিশোধ করে দেওয়া হবে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি নূরে আজম মিয়া বলেন, সকাল থেকে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে রেখেছে। আমি ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। খুব শিঘ্রেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হবে। নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে বেতন ভাতার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ 

টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট ছুড়েছে। এতে অনেকে আহত হয়েছেন। তবে আহতের সংখ্যা নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। 

তিনি আরও বলেন, আমরা এ বিষয়ে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলেছি। আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে মালিকপক্ষ বেতন পরিষোধ করে দিবেন বলে জানিয়েছেন।