নির্বাচনে কালো টাকার ছড়াছড়ি, হুমকি দিয়ে থামিয়ে রাখতে পারবে না : রানু 

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু হোসেন ভূঞা রানু বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন আমার সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছে। তবে আমাকে হুমকি দিয়ে তারা থামিয়ে রাখতে পারবে না।কারণ আমি নির্বাচনের শেষ দিন পর্যন্ত আপনাদের সাথে আছি। 

শনিবার (১৮ মে) সন্ধ্যায় রূপগঞ্জ উপজেলা ভুলতা ইউনিয়নের সাওঘাট এলাকায় প্রচারণার সময়ে তিনি এ কথা বলেন। 

নির্বাচনে কালো টাকার ছড়াছড়ি হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন কালো টাকার অবৈধ ছড়াছড়ি করছে। তারা মনে করে, টাকা না দিলে হয়তো তারা ভোট পাবে না। কিন্তু এসব টাকা কেউ দিলে খাবেন, তবে ভোট দেবেন যোগ্য প্রার্থীকে। সেক্ষেত্রে আমি যোগ্য প্রার্থী না হলে ‘আমি এই ভোট আশা করিনা।’ 

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজ রূপগঞ্জের বড়ালো পাড়া এলাকায় প্রচারণার সময় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন আমার কর্মীদের ওপর হামলা করেছে ও মারধর করেছে। তাছাড়া 

নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেকটা ইউনিয়ন পরিষদে একটি করে ক্যাম্প ও পৌরসভায় তিনটি ক্যাম্প থাকবে। অথচ আমরা যেই এলাকায় যাই সেখানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর একাধিক ক্যাম্প দেখতে পাচ্ছি। এ বিষয়ে প্রশাসন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। 

রূপগঞ্জের ভিটামাটি কমে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের রূপগঞ্জের ভিটামাটি দিন দিন কমে যাচ্ছে, এগুলো রক্ষা করতে হবে। এর পাশাপাশি আমি মাদক ও সন্ত্রাস নির্মূল করবো। রূপগঞ্জবাসীর পাশে সব সময় থাকবো।

এই অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য নেওয়ার জন্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব কে ফোন করেও পাওয়া যায়নি। 

এদিকে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু হোসেন ভূঞা রানু কে সমর্থন দিয়ে প্রকাশ্যে তার পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে ভোট চেয়েছেন জাপান-বাংলাদেশ গ্রুপের চেয়ারম্যান সেলিম প্রধান। 

এ বিষয়ে সেলিম প্রধান বলেন, রূপগঞ্জে রূপগঞ্জের রক্ত থাকতে হবে, কোন বহিরাগত ঠাঁই পাবে না। আমাদের রূপগঞ্জবাসীর প্রার্থী রানু ভাই, আপনারা সবাই তাকে ভোট দেবেন। আমাদের মার্কা আনারস মার্কা। নির্বাচনে আমি তাকে সমর্থন দিয়ে তার পাশে আছি। আমি সব সময় ভালো মানুষের পক্ষে আছি। আর রানু ভাই অত্যন্ত ভালো ও শিক্ষিত মানুষ। তিনি আমাদের রূপগঞ্জের প্রতিটা মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বে বলে আমার কাছে ওয়াদা করেছেন।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় ধাপে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ ২১ মে অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে হাবিবুর রহমান হাবিব দোয়াত কলম প্রতীকে এবং আবু হোসেন ভূঞা রানু আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। হাবিবুর রহমানের পক্ষে প্রকাশ্যে প্রচারণায় নেমেছেন সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজীর ছেলে গাজী গোলাম মুর্তজা পা্প্পা ও আবু হোসেন ভূঞা রানুর পক্ষে সমর্থন দিয়ে প্রকাশ্যে ভোট প্রার্থনা করছেন জাপানা-বাংলাদেশ গ্রুপের চেয়ারম্যান সেলিম প্রধান।