সড়ক মহাসড়কে ককটেল বিস্ফোরণ ও অগ্নিসংযোগ সহ গাড়ি ভাঙচুর 

নিজস্ব প্রতিনিধি :

দ্বিতীয় দফায় বিএনপির ডাকা অবরোধের প্রথমদিনে নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করেছে অবরোধকারীরা। এ সময় ককটেল বিস্ফোরণ সহ গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার (৫ নভেম্বর) সকালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের একাধিক স্থান, এশিয়ার হাইওয়ের মদনপুরে, ঢাকা-সিলের মহাসড়কের বান্টিবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। 

দলীয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকায় জেলা বিএনপির সভাপতি মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের নির্দেশে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির নেতাকর্মীরা সড়ক অবরোধ করে আগুল জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। এ সময় আশেপাশে দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। একই সময়ে ককটেল বিস্ফোরণ করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। অবরোধকারী নেতাকর্মীরা নানা স্লোগান দিয়েছে। 

আরও জানা গেছে, মহানগর ছাত্রদলের নির্দেশে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা মহাসড়কের শিরাইল এলাকায় এবং জেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক খায়রুল ইসলাম সজীবের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা এশিয়ান হাইওয়ের মদনপুর এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে কর্মসূচি পালন করেন। এছাড়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বান্টিবাজার এলাকায় অল্প সময়ের জন্য নেতাকর্মীরা জড় হয়ে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয়। এছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জের হাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় ঝটিকা মিছিল ও অগ্নিসংযোগ করেছে মহানগর যুবদলের নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা লাঠিসোটা নিয়ে মহড়া দিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে এবং একটি প্রাইভেটকারের জানালার কাঁচ ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই তারা পালিয়ে যায়।

আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলায় অবরোধের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবির হোসেন বলেন, আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলায় স্বাভাবিক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। তবে সকালে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বান্টিবাজার এলাকায় অবরোধকারীরা একত্রিত হওয়ার চেষ্টা করেছিল। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয়। 

নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) চাইলাউ মারমা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জেলার অনেক স্থানে ৫-৭ জন মিলে হঠাৎ করে আগুন জ্বালিয়েছে। আবার পুলিশ দিয়ে তাদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দিয়েছে। আজকে সকাল পর্যন্ত ১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। এমনিতে বড় ধরনের কোন নাশকতার ঘটনা ঘটেনি। 
ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমন কোন ঘটনার তথ্য আমাদের জানা নেই। 

এর আগে, শনিবার দিবাগত রাতে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা একটি যাত্রীবাহী ফাঁকা বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে পুরো বাস পুড়ে গেছে।