গাউছিয়ার কাঁচাবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, পুড়েছে শতাধিক দোকান

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ গাউছিয়া মার্কেটের কাঁচাবাজারের অংশে লাগা আগুন দীর্ঘ দুই ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। 

রবিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৬ টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৮টি ইউনিট কাজ করেছে। এখন ডাম্পিংয়ের কাজ চলছে।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গাউছিয়া মার্কেটের কাঁচাবাজার অংশে রাত সাড়ে ৩ টার দিকে আগুন লাগে। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হলে, রাত পৌনে ৪ টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একাধিক ইউনিট এসে কাজ শুরু করে। এ সময় রূপগঞ্জের কাঞ্চন,  আড়াইহাজার, আদমজি ইপিজেড ও ডেমরা স্টেশনের ৮টি ইউনিট একে একে যুক্ত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। পরে ভোর পৌনে ৬ টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এই ঘটনায় প্রায় শতাধিক দোকান পুড়েছে। 

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারি পরিচালক ফখর উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের ৮টি ইউনিট কাজ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এখন ডাম্পিংয়ের কাজ চলছে। 

ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা বিভাগের উপ-পরিচালক ও ইনসিডেন্ট কমান্ডার মো. ছালেহ উদ্দিন বলেন, রাত ৩ টা ৩৫ মিনিটে গাউছিয়া কাঁচাবাজারে আগুন লাগার খবর পেয়ে রূপগঞ্জের কাঞ্চন ও আড়াইহাজার ফায়ার স্টেশনের ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। এ সময় আগুনের ভয়াবহতা বাড়তে শুরু করে। পরে আদমজী ইপিজেড ও ডেমরা ফায়ার স্টেশনের মোট ৮টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। এখন ডাম্পিংয়ের কাজ চলছে। এখন আগুন নিয়ন্ত্রণে আছে। আগুন আর স্প্রেড (ছড়ানোর) সম্ভাবনা নেই। এই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমান তদন্ত শেষে বলা সম্ভব হবে। 

কাাঁচাবাজারের আগুন দ্রুত ছড়িয়ে যাওয়ার কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই মার্কেট টিনশেড এবং প্রত্যেকটা দোকানের শাটার লাগানো ছিল। অধিকাংশ দোকানের শাটার ও তালা কেটে দোকানে প্রবেশ করেছে ফায়ার সার্ভিস টিম। এবং অত্যান্ত ঝুঁকি নিয়ে অগ্নিনির্বাপন করেছেন। এটা কাঁচা মার্কেট নাম হলেও বিভিন্ন রকমের দোকান ছিল্। এমনকি লুব্রিকেন্ট ও পেট্রোল, হার্ডওয়্যার, টায়ার-টিউব সহ নানা রকমের দোকান ছিল এই মার্কেটে। একারণে আগুন খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।