কোন ছেঁচড়ার তাফালিংয়ে বঙ্গবন্ধুর সৈনিকরা ভয় পায় না : চন্দন শীল

নিজস্ব প্রতিনিধি :

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু চন্দন শীল বলেন, ‘কিছু ছেঁচড়া, ক্লাস নাই এরা নাকি পলিটিক্যাল কর্মী। রাজনৈতিক কর্মীরা কখনো লাঠি নিয়ে বিনা কারণে মিছিল করবে না। তাদের উদ্দেশ্য আতঙ্ক সৃষ্টি করা। তারা আবার অগ্নি সন্ত্রাস করতে চায়। অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়। সে কারণে কিন্তু আমরা এখানে বসে আছি। আমরা চলে যেতাম। আমরা যদি চলে যেতাম ওদের একটা ভাব হতো, আমরা ভয় দেখিয়ে মিটিং পন্ড করে দিয়েছি। আপনারা প্রমাণ করেছেন কোন ছেঁচড়ার তাফালিংয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকরা ভয় পায় না।

বুধবার (৩০ আগষ্ট) বিকেলে চাষাঢ়া টাউন হলে জেলা শ্রমিক লীগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনাকে স্মরণ করে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু মানে স্বাধীনতা। অথচ তাকে হত্যা করা হল। তাকে হত্যা করে বাংলার স্বাধীনতাকে ম্লান করতে চেয়েছিল, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে হত্যা করতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা পারেনি। বঙ্গবন্ধুর কণ্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে এ দেশে। আজ বাংলাদেশ কোথায় পৌছে গেছে। তবে স্বাধীনতা বিরোধীরা এই উন্নয়ন আবার চোখে দেখেনা। তাই আবারো জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। নৌকাকে বিজয়ী করে আনতে হবে। 

জেলা শ্রমিক লীগের আহবায়ক আব্দুল কাদিরের সভাপতিত্ত্বে ও ইন্জিনিয়ার মো: আলমগীর মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক এম এ রাসেল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হাসান নিপু, বাংলাদেশ ট্যাংক লরী শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন, জেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহবায়ক মো. সিরাজুল ইসলাম, হুমায়ুন কবির, জেলা শ্রমিক লীগের সদস্য আলী হোসেন, মো: মজিবুর রহমান, জাহাঙ্গীর, মো: মোসলেউদ্দিন জীবন,মো: বোরহান উদ্দিন,মো: শাহাবুদ্দিন পাঠান,মো: আসলাম, মো: রবিউল,মো: পাবেল খান,মো: রবিন,মো: ওমর ফারুক,মো: সোহেল ভান্ডারী,মো: রোবায়েত হোসেন সান্ত,মো: দ্বীন মোহম্মদ, সহিদুল ইসলাম,লিটন গাজী সহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। দোয়া মাহফিল শেষে রান্না করা তবারক বিতরণ করা হয়।