আড়াইহাজারে আসামি ধরতে গিয়ে হামলার শিকার পুলিশ; আহত ৮, আটক ২

হামলা
হামলা

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে আসামি ধরতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন পুলিশের একটি টিম। এতে সাত পুলিশ সদস্য সহ একজন হামলাকারী আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) ভোরে উপজেলার দুপ্তরা ইউনিয়নের নতুন বান্টি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আটককৃত দুজন হলেন, সুফিয়ান ও নাজমুল। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন-  এএসআই কুদ্দুর আলী, আবু তাহের, পুলিশ সদস্য রমজান, জহিরুল ইসলাম, মাহফুজ, আবু রায়হান সহ ৭ জন।

পুলিশ জানায়, আড়াইহাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে একটি টিম ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি ধরতে ও চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধারে অভিযানে বের হয়। এ সময় তারা নতুন বান্টি গ্রামের মো. আলমগীর হোসেনের বাড়ির পাশে নম্বরবিহীন লাল-কালো রঙের একটি মোটরসাইকেল পরিত্যক্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরবর্তীতে পুলিশ আলমগীরকে মোটরসাইকেলের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান তার ছোট ভাই মোস্তাকিম ওই মোটরসাইকেলটি পাল্লা এলাকার আবুলের ছেলে পাভেলের (২০) কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকায় কিনেছেন। পরে পুলিশ পাভেলের বাড়িতে গেলে মোটরসাইকেলটি চোরাই বলে স্বীকার করেন। এ সময় পুলিশ পাভেলকে আটক করে নিয়ে আসার সময় এলাকাবাসী ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার করে পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে পাভেল পালিয়ে যান।

সংবাদ পেয়ে টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এক রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে। এতে পুলিশের ওপর আক্রমণকারী ওই এলাকার মৃত ছাবেদ আলীর ছেলে মো. শরিফ গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। সেইসঙ্গে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহ আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। 

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান উল্লাহ বলেন, ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।